তোমরা যে মৃত্যু থেকে পলায়নপর, সে মৃত্যু অবশই তোমাদের মুখোমুখি হবে

بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمٰنِ الرَّحِيمِ
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম
পরম করুণাময় ও অসীম দয়ালু আল্লাহ্‌র নামে শুরু করছি
তোমরা যে মৃত্যু থেকে পলায়নপর, সে মৃত্যু অবশই তোমাদের মুখোমুখি হবে

লেখাঃ মোঃ আলি হামজা (আল্লাহ্‌ তাকে উত্তম প্রতিদান দান করুন!)

মৃত্যুর স্মরন...

"প্রত্যেক প্রানীই মৃত্যুর স্বাদ আস্বাদন করবে।" [সূরাহ আল ইমরান, আয়াত : ১৮৫]

"মৃত্যু যন্ত্রণা নিশ্চিত আসবে। যা থেকে বাঁচার জন্য ইতঃপূর্বে তুমি টালবাহানা করতে।" [সূরাহ কাফ, আয়াত : ১৯]

"বলুন, তোমরা যে মৃত্যু থেকে পলায়নপর, সে মৃত্যু অবশই তোমাদের মুখোমুখি হবে।" [সূরাহ জুমআ, আয়াত : ৮]

"যিনি মৃত্যু ও জীবন সৃষ্টি করেছেন, যাতে তিনি তোমাদেরকে পরীক্ষা করতে পারেন যে, তোমাদের মধ্যে আমলের দিক থেকে কে সর্বাধিক উত্তম। আর তিনি মহাপরাক্রমশালী ও অতিশয় ক্ষমাশীল।" [সুরাহ আল-মুলক, আয়াত : ২]

"যদি আপনি দেখেন, যখন জালিমরা মৃত্যুযন্ত্রনায় আক্রান্ত হবে।" [সূরাহ আনআম, আয়াত : ৯৩]

"সাবধান, যখন প্রান কন্ঠাগত হবে। বলা হবে, কে তাকে রক্ষা করবে? দুনিয়া হতে বিদায়ের সময় এসে গেছে। পায়ের সঙ্গে পা জড়িয়ে যাবে। অবশেষে আপনার পালনকর্তার নিকট নীত হবে।" [সূরাহ কিয়ামাহ, আয়াত : ২৬-৩০]

"আর তোমরা পাথেয় সঙ্গে নিয়ে যাও। নিঃসন্দেহে উত্তম পাথেয় হচ্ছে তাকওয়া বা আল্লাহভীতি।" [সূরাহ আল-বাকারাহ, আয়াত : ১৯৭]

"একদল জান্নাতে প্রবেশ করবে এবং একদল জাহান্নামে প্রবেশ করবে।" [সূরাহ শুরা, আয়াত : ৭]

● কেমন হবে মৃত্যু যন্ত্রনা?

আমর ইবনুল আস (রাঃ) বলেন, আল্লাহর শপথ, আমার পিঠকে যেনো একটা শক্ত তক্তার উপর রাখা হয়েছে, আর আমি সুঁইয়ের ছিদ্র দিয়ে শ্বাস নিচ্ছি, অপরদিকে আমার পা থেকে মাথা পর্যন্ত একটি কাঁটাযুক্ত ডাল টেনে হেঁচড়ে নেওয়া হচ্ছে। [জামিউল উলুম, ৪৪৯]

উমর (রাঃ) বলতেন, তোমরা অধিক পরিমানে মৃত্যুকে স্মরন করো, কারম তার গরম হবে প্রচন্ড, তার গভীরতা হবে অনেক, তার পেটানোর হাতুড়িটি হবে লোহার। [আল-হাসান আল-বসরি, ১০৮]

● কেমন হবে আমাদের প্রস্ততি?

শাকিক ইবনে ইব্রাহিম (রহ.) বলেন, তুমি এমন ভাবে প্রস্তুতি গ্রহন করো, যাতে মৃত্যুর পর তোমাকে দুনিয়াতে ফিরে আসার জন্য প্রার্থনা করতে না হয়। [বায়হাকি কৃত আজ যুহদ, ২৩৯]

কা'কা ইবনে হাকিম (রহ.) বলেন, ৩০ বছর যাবৎ আমি মৃত্যুর প্রস্তুতি নিচ্ছি, এবার মৃত্যু যদি আমার নিকট আসে, তাহলে আমি আমার ইবাদতের তালিকার ক্ষত্রে কোনোটাকে আগে-পিছে করতে পছন্দ করবো না।

আনাস ইবনে ইয়াজ (রহ.) বলেন, আমি সাফওয়ান ইবনে সুলাইমানকে এমন অবস্থায় দেখেছি, যদি তাজে বলা হতো আগামীকাল কিয়ামত, তাহলে কোনো আমল বৃদ্ধি করার মতো সুযোগ বা সময় তার ছিলো না। সব সময়ই তিনি আল্লাহর ইবাদতে নিজেকে নিয়োজিত রাখতেন। [আস-সুবাত ইনদাল মামাত, ৯৩]

মুগিরা (রহ.) মালিক ইবনে দিনারকে মুমূর্ষ দেখতে গেলে তিনি দেখলেন যে মালিক ইবনে দিনার (রহ.) আকাশের দিকে তাকিয়ে বলছে, "হে আল্লাহ আপনি জানেন, আমি দুনিয়াতে পেট আর লজ্জাস্থানের চাহিদা মেটাবার জন্য বেঁচে থাকতে চাই না।" [আস-সুবাত ইনদাল মামাত, ১৫৩]

"তুমি তো ঘুমিয়ে আছো, কিন্ত মৃত্যু তো নেই ঘুমিয়ে। হে ঘুমকাতুর, একটু ওঠো, মৃত্যু তোমার অতি নিকটে..."

আল্লাহর কাছে একান্ত প্রার্থনা "লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ" যেনো হয় দুনিয়ার জীবনে শেষ বাক্য...
▂▂▂▂▂▂▂▂▂▂▂▂▂
আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক ইন শা আল্লাহ ’ লেখাটি শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে!

Post a Comment

0 Comments