রোজারত অবস্থায় অসুস্থতার কারণে নাসাল ড্রপ ব্যবহার করার বিধান



প্রশ্নঃ আমি রোজা অবস্থায় অসুস্থতার কারণে নাকে নাসাল
 ড্রপ নিয়েছি; এর ফলে গলায় ঐ ঔষধের তিতা স্বাদ অনুভব করেছি। এক্ষেত্রে আমার রোজা শুদ্ধ হয়েছে কি?

উত্তর: নাকের ছিদ্র দিয়ে ওষুধ প্রবেশ করানোর ফলে যদি গলায় ওষুধের স্বাদ পাওয়া যায় তাহলে এতে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে বলে অনেক আলেম মত দিয়েছেন।

তারা নিম্নোক্ত হাদিস দিয়ে দলিল পেশ করে থাকেন:

লাকীত ইবনে সুবরা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহুর হাদীসে এসেছে:নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,

«وَبَالِغْ فِي الِاسْتِنْشَاقِ إِلَّا أَنْ تَكُونَ صَائِمًا»

"তুমি অযুর সময় নাকে ভালোভাবে পানি পৌঁছিয়ে দাও অবশ্য সাওম পালনকারী হলে এমন করবে না।"

এই হাদীস থেকে বোঝা যায় যে, রোজা থাকা অবস্থায় এমনটি করা ঠিক নয়। কারণ যদি নাক বা মুখ দিয়ে ভিতরে পানি প্রবেশ করে তাহলে রোজা ভেঙ্গে যাবে।

সুতরাং পানির মত যদি নাকের ছিদ্র দিয়ে ঔষধ ভিতরে প্রবেশ করে তবেও রোজা ভেঙ্গে যাবে।

যা হোক জটিল রোগে একান্তই যদি অপারোগ অবস্থায় নাকে ওষুধ দিতে হয় তবে সতর্ক হতে হবে, যেন গলার ভেতর দিয়ে ওষুধের কোন অংশ পৌঁছলে তা যেন দিলে না ফেলা হয়। তাহলে ইনশাআল্লাহ আর কোন সমস্যা নেই।

উল্লেখ্য যে, রোজা অবস্থায় চোখ ও কানে ওষুধের ড্রপ দেওয়ার ফলে যদি গলায় তার স্বাদ পাওয়া যায় তবুও এতে রোজার কোন ক্ষতি হবে না কারণ চোখ বা গলা খাদ্য বা পানীয় প্রবেশের স্থান নয়।

আল্লাহ তৌফিক দান করুন। আমিন।

লেখাঃ আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল (আল্লাহ্‌ তাকে উত্তম প্রতিদান দান করুন

আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক ইন শা আল্লাহ ’ লেখাটি শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে!

Post a comment

0 Comments