আমার পালনকর্তা যা চান, কৌশলে সম্পন্ন করেন।


আমার পালনকর্তা যা চান, কৌশলে তা সম্পন্ন করেন..

প্রিয় মু’মিন ভাই, বর্তমান পৃথিবীতে বাতিলের জয়জয়কার এবং তাদের সমৃদ্ধি হয়তো আপনাকে ভড়কে দিতে পারে। তাদের অবস্থা দেখে আপনি হয়তো ভেবেই কূল পান না যে, দ্বীনের সংশোধনে আধূনিক ব্যবস্থাপনা গ্রহণ করা ছাড়া আল্লাহর সাহায্য কিভাবে আসবে? হ্যাঁ ভালো কথাই ভেবেছেন আপনি। তবে আমি বলব নিচের আয়াতে কারীমা দিয়ে নিজেকে একটু সান্তনা দিন।

إِنَّ رَبِّي لَطِيفٌ لِّمَا يَشَاء إِنَّهُ هُوَ الْعَلِيمُ الْحَكِيمُ

❝আমার পালনকর্তা যা চান, কৌশলে সম্পন্ন করেন। নিশ্চয় তিনি বিজ্ঞ, প্রজ্ঞাময়।❞ (সুরাহ ইউসুফ, আয়াত : ১০০)

আল্লাহ তা’আলা যা কিছু করতে চান তার উপাদান, পরিমাণ ও পদ্ধতি তিনি এমন সুক্ষ কৌশলে ব্যবস্থা করেন যা কেউ ধারণাও করতে পারে না। সীমাহীন যন্ত্রণা থেকে তিনি ঈর্ষণীয় প্রশান্তি দিতে পারেন। দুর্বলকে ইজ্জত ও ক্ষমতার মসনদে বসিয়ে দিতে পারেন অনায়াসে।

উল্লেখিত আয়াতটি সূরা ইউসুফে ❝নবী ইউসুফ (আঃ)❞ এঁর ঘটনা প্রসংগে এসেছে। ইউসুফ (আঃ) কে আল্লাহ তাআলা জেলখানার আঁধার ঘেরা চার দেয়াল হতে বের করে বিচারকের মর্যাদাপূর্ণ আসনে বসিয়ে দিয়েছেন। বেশি কিছু করেননি। বাদশাহকে শুধু একটি স্বপ্ন দেখিয়েছেন।

তিনি সেই মহান সত্তা, যিনি ফিরআউনের মত শক্তিশালী তাগুতকে পানিতে ডুবিয়ে মেরে তার রাজত্ব মূসা (আঃ) এঁর হাতে তুলে দিয়েছেন।

তিনি সেই পবিত্র সত্তা, যিনি বনু কুরাইজার বিশ্বাসঘাতকতার দিন নুআইম বিন মাসউদ (রাঃ) এর অন্তরে ঈমানের নূর দান করেন। অতঃপর নুআইম বিন মাসউদ (রাঃ) এর কৌশলী ফাঁদে পা দিয়ে ইয়াহুদীরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়ে। এবং অনায়াসে মুসলমানদের বিজয় হয়।

তিনি সেই পবিত্র সত্তা, যিনি মিসরের বিদ্যামান ফাতিমী সম্প্রদায়ের ক্ষমতা ‘নুরুদ্দীন জঙ্গী (রহঃ) এর হাতে দান করেন। অতঃপর তার হাত ধরে ইতিহাসখ্যাত বীর পুরুষ ❝সালাহুদ্দীন আইয়ূবী (রহঃ)❞ এর আগমন ঘটে। যিনি ক্রুসেডারদের নাকানি চুবানি খাইয়ে নাস্তানাবুদ করে ছাড়েন।

তিনি সেই মহান সত্তা, যিনি সাইফুদ্দীন কুতুব (রহঃ) এর মধ্যে অমিত সাহসের বারুদ ঠেসে দিয়ে অপরাজেয় তাতার বাহিনীকে ধূলোয় মিশিয়ে দিয়েছেন।

তিনি সেই পবিত্র সত্তা, যিনি ক্ষুদ্র চেচেনিয়ার বিরুদ্ধে লড়তে পরাশক্তি রাশিয়াকে টুকরো টুকরো করে নাভিশ্বাস তুলে পালাতে বাধ্য করেছেন।

তিনি সেই মহান সত্তা, যিনি রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে সহায়তার নামে আফগানিস্তানে জেঁকে বসা মার্কিন পরাশক্তিকে আফগান মরুর মরীচিকায় দিশেহারা করে রেখেছেন। আফগান মুজাহিদগণের ক্রমাগত চপেটাঘাতে তারা এখন দু’ চোখে সর্ষে ফুল দেখছে। দুআ করি আল্লাহ তাআলা যেন আফগানিস্তানকে মার্কিনীদের পশ্চাদ্দেশের বিষফোড়া বানিয়ে দেন। যার সুসংবাদ ইতিমধ্যেই আমরা পেতে শুরু করেছি।

তাই প্রিয় মুমিন ভাই, ❝আল্লাহ তাআলা কিভাবে দ্বীনের সাহায্য করবেন❞ - এ চিন্তায় ঘুম নষ্ট না করে আপনি বরং দ্বীনের যে জামাআতকে আল্লাহ তা’আলা সাহায্য করবেন তাদের একজন হওয়ার চেষ্টা করুন। এই উম্মাহর পুনরুত্থানে যেন আপনার অবদান থাকে তা নিশ্চিত করুন। হোক তা আপনার মৃত্যুর পর। আল্লাহ তাআলা আমাকে এবং আপনাকে তাদের অন্তর্ভুক্ত করুন। আমীন!

আপনিও হোন ইসলামের প্রচারক ইন শা আল্লাহ ’ লেখাটি শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ